বঙ্গবন্ধু পাগল নুরুল হুদা উখিয়া উপজেলার ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী

শফিউল শাহীন
  • প্রকাশিত সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারী, ২০১৯

জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষ। উপজেলা নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করায় সবার চোখ এখন উপজেলা নির্বাচনের দিকে। কোন দল থেকে কে প্রার্থী হচ্ছে তা নিয়ে কসছেন নানা অংক।

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে উখিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী হিসেবে নরুল হুদা’র মনোনয়ন প্রত্যাশা করেছেন উখিয়ার তৃণমূল তথা প্রান্তিক জনপদের সর্বস্তরের জনসাধারণ।

নব্বই’র শৈরাচার বিরোধী আন্দোলন থেকে জন্ম নেওয়া গণমানুষের নেতা নরুল হুদা গত ৩০ বছর মুজিব আদর্শের পতাকাকে বুকে আগলে রেখে সূর্যদ্বয় থেকে সূর্যদ্বয় পর্যন্ত পাহারা দিয়ে চলছেন। এ পতাকায় যেন মিশে আছে তার সমস্ত প্রেম ও ভালবাসা। তাই তিন দশকের বেশি সময় এ পতাকার মর্যাদার লড়ায়ে কাটিয়ে দিয়েছেন।

ছাত্র-জীবন থেকে মুজিব পাগল এ নুরুল হুদা বঙ্গবন্ধু মুজিবের হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন অন্ধ অনুসারি হিসেবে ছাত্রলীগকে সংগঠিত করতে কাজ করেছেন। ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, সহ-সভাপতি, সভাপতিসহ নানা দায়িত্ব পালন শেষে সরাসরি মূল দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাথে যুক্ত হন। পরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ উখিয়া উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

তার রাজনৈতিক জীবনের শুরু থেকে আজ অবধি মানুষের কন্যাণে কাজ করে জয় করেছেন লক্ষ মানুষের হৃদয়। উখিয়ার ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের ইতিহাসে এ মজিব পাগল নুরুল হুদা একটি সুপরিচিত ও শ্রদ্ধার নাম। যার কারণে আজ উখিয়ার সর্বস্তরের জনগণ এ নুরুল হুদাকে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে কামনা করছেন।

উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ সহ অঙ্গসংগঠনের প্রায় অর্ধশত নেতাকর্মির সাথে একান্ত আলাপচারিতায় তারা ভিন্ন ভিন্ন ভাবে জানিয়েছেন, এ নুরুল হুদা ছাত্রলীগ থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত কোন দিন আওয়ামীলীগের আদর্শকে ছেড়ে কোন কিছু চিন্তা করেননি। যার অনুপস্থিতিতে কোটবাজার আওয়ামীলীগের কোন প্রোগ্রামের কথা ভাবায় যায় না। যিনি সারাজীবন সাধারণ মানুষের পক্ষে কাজ করেছেন। এ রকম নিবেদিত, নির্লোভ, নিরহংকারী মানুষকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ভইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন না দিলে এ নুরুল হুদার প্রতি চরম অন্যায় করা হবে। কেননা,গত ৩০ বছর ধরে তিনি কেবল মুজিব আদর্শের পতার জন্য কাজ করে গেছেন, তেমন কিছুই পেলেন।

এসব নেতারা আশাবাদ ব্যাক্ত করে আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবশ্যই ত্যাগীদের মুল্যায়ন করেন। এ হিসেবে গণমানুষের নেতা নুরুল হুদাকে মূল্যায়ন করবেন।

উল্লেখ্য, বন্ধবন্ধুর প্রতি এ গণমানুষের নেতা নরুল হুদা’র ভক্তি শ্রদ্ধা এত প্রবল ছিলো বলে ২ দশক আগে তার পৈত্রিক সম্পত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত একটি মার্কেট “বঙ্গবন্ধু মার্কেট” নামে নামকরণ করেছিলেন।

সংবাদটি আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন...

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ :