টেকনাফে শীর্ষ রোহিঙ্গা হাকিম ডাকাত ফের সক্রিয়!! ডাকাতি ও দুই কিশোরী অপহরণ

গিয়াস উদ্দিন ভুলু, টেকনাফ
  • প্রকাশিত সময় : রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯

টেকনাফে গহীন পাহাড়ে লুকিয়ে থাকা শীর্ষ রোহিঙ্গা ডাকাত আব্দুল হাকিমসহ তার সহযোগীরা সক্রিয় হয়ে আবারও বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড সংঘটিত করছে বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

তথ্য সুত্রে জানা যায়, ২০ অক্টোবর ভোর রাত আড়াইটার দিকে হাকিম ডাকাতের নেতৃত্বে টেকনাফ উপকুলীয় ইউনিয়ন বাহাছড়া শীলখালী মাঠপাড়া এলাকার হেডম্যান আবুল কালামের বসত বাড়ীতে ঢুকে বিপুল পরিমান স্বর্ন-অলংকার নগদ টাকা লুট করে এবং যাওয়ার সময় আবুল কালামের স্কুল পড়ুয়া দুইজন কিশোরি মেয়েকে অপহরণ নিয়ে যায়। অপহরন হওয়া দুই মেয়ে শামলাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ট শ্রেণীর ছাত্রী বলে জানাগেছে।

এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য হুমায়ুন কাদের জানান, খবরটি পেয়ে সাথে সাথে পুলিশকে খবর দিলে
এরপর রাত ৩ টার দিকে শামলাপুর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং পার্শ্ববর্তী পাহাড়ে বেশ কয়েক ঘন্টা অভিযান চালায়।
কিন্তু অপহরন হওয়া দুই স্কুল ছাত্রীকে এখনো উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

উল্লেখ্যঃ-শীর্ষ রোহিঙ্গা ডাকাত এই আব্দুল হাকিম গত কয়েক বছরে টেকনাফ উপজেলা বিভিন্ন এলাকায় মাদক পাচার মানুষ হত্যাসহ নানা প্রকার অপরাধ সংঘটিত করে আসছে।
তাকে আটক করার জন্য স্থানীয় আইন-শৃংখলা বাহীনির সদস্য বেশ কয়েকবার সাঁড়াশী অভিযান পরিচালনা করেছিল।
উক্ত অভিযানে এবং বন্দুকযুদ্ধে তার আপন ভাই স্ত্রীসহ বেশ কয়েকজন চিহ্নিত ডাকাত নিহত হয়েছিল। কিন্তু শীর্ষ আলোচিত রোহিঙ্গা ডাকাত আব্দুল হাকিত এখনো রয়ে গেল অধরা!
অপহরন ও ডাকাতি হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে শামলাপুর পলিশ ফাঁড়ির তদন্তকারী কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান,ঘটনাটি শুনে সাথে পুলিশের একটি দল নিয়ে ঘটনাস্থল পৌছে পাহাড়ী এলাকায় অভিযান চালানো হয়েছে। তিনি আরো বলেন অপহরন হওয়া দুই মেয়েকে উদ্ধার করার জন্য আমাদের অভিযান এখনো অব্যাহত আছে।

সংবাদটি আপনার ফেইসবুকে শেয়ার করুন...

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ :